Breaking News

কালীগঞ্জে কাদিয়ানীদের অমুসলিম ঘোষণার দাবিতে মানববন্ধন

কাদিয়ানীদের অমুসলিম ঘোষণার দাবিতে কালীগঞ্জে দুই কি.মিটার জুড়ে মানববন্ধন

মোঃ আরিফ হোসেন, কালীগঞ্জ (গাজীপুর) প্রতিনিধি : আহমদিয়া মুসলিম জামাত তথা কাদিয়ানীদের রাষ্ট্রীয়ভাবে অমুসলিম ঘোষণার দাবিতে কালীগঞ্জে কওমি ওলামা পরিষদের উদ্যোগে দুই কিলোমিটার এলাকাজুড়ে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। “নবীর পরে নবী নাই, সংসদে আইন চাই”। “কাফের কাফের কাদিয়ানীরা কাফের” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে সোমবার সকাল ১০টা হতে দুপুর ১২টা পর্যন্ত উপজেলার বিভিন্ন মসজিদের ইমানগণ, মাদ্রাসার শিক্ষার্থী-শিক্ষকমন্ডলি, বিভিন্ন ধর্মীয় সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দরা এ মানববন্ধন কর্মসূচিতে শরিক হন।

কালীগঞ্জ পৌরসভার আড়িখোলা মহাসড়ক থেকে শুরু করে শ্রমিক কলেজ রোড়, টঙ্গী-কালীগঞ্জ-ঘোড়াশাল বাইপাস, পল্লী বিদ্যুৎ, মহিলা ডিগ্রী কলেজ, বাসস্ট্যান্ড ও কালীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের রাস্তাসহ প্রায় দুই কিলোমিটার এলাকাজুড়ে কয়েক হাজার ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা এ মানববন্ধন কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন।

মানববন্ধন কর্মসূচির আগে কালীগঞ্জ শ্রমিক কলেজ চত্বরে এক সংক্ষিপ্ত সভায় কালীগঞ্জ কওমি ওলামা পরিষদের সভাপতি মাওলানা আবদুস সাত্তার তার বক্তৃতায় বলেন, যেই দাবি বাস্তবায়ন করতে আমরা এখানে উপস্থিত হয়েছি, তার বক্তব্য আল্লাহপাক পবিত্র কোরআনে দিয়েছেন। আমাদের সর্বশ্রেষ্ঠ ও শেষ নবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর পর আর কোনো নবী নেই। কোনো নবী পৃথিবীতে আসবে না। যারা এটা মানবে তারা প্রকৃত মুসলমান। আর যারা মানবে না তারা কাফের। আহমদিয়া মুসলিম জামাত তথা কাদিয়ানীরা এটা মানে না, তাই তারা কাফের। কাদিয়ানীদের বাংলার মাটি থেকে উৎখাত করতে হবে। নবীর পরে নবী নাই, এ বিষয়ে সংসদে আইন পাস করতে সরকারের প্রতি জোর দাবি জানানো হয়। সরকারিভাবে কাদিয়ানীদের কাফের ঘোষণা করতে হবে। প্রাণ কোম্পানী কাদিয়ানীর। প্রাণ(আরএফএল) কোম্পানীর সকল পণ্য বর্জনের করার জোরালো দাবি তুলেন তিনি।

এই সময় বক্তব্য রাখেন, কালীগঞ্জ কওমি ওলামা পরিষদের মহাসচিব গাজী রুহুল আমীন কাসেমী, কালীগঞ্জ বাজার মদিনাতুল মনোয়ারা জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব মাওলানা আব্দুল হাফিজ, বালীগাঁও বড়বাড়ি জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা আবু হানিফ, কালীগঞ্জ থানা মসজিদের ইমাম মাওলানা এমদাদুল হক, কালীগঞ্জ সাব-রেজিষ্ট্রি অফিস জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব মাওলানা মো. মুজিবুর রহমান প্রমুখ।

No comments